মেনু নির্বাচন করুন

পাঞ্জু

পাঞ্জু শাহ ফকির (১৮৫১- ১৯১৪) বাঙালি মরমি কবি যাকে শ্রেষ্ঠত্বের বিচারে মরমিকবি লালন ফকিরের পরেই বিবেচনা করা হয়। তবে লালন ফকির পাঞ্জুশাহের গুরু নন, তবে যুবক পাঞ্জুশাহ বৃদ্ধ লালন ফকিরের সাথে পাল্লায় গান গেয়েছেন। পাঞ্জু শাহ ১৮৫১ (বাংলা ১২৫৮) শালে শৈলকূপা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম খাদেম আলী খন্দকার। খাদেম আলী খন্দকার জমিদারি হারিয়ে পরে পুত্র পাঞ্জু ও ওছিমউদ্দীনকে নিয়ে বর্তমান হরিণাকুণ্ড থানার হরিশপুর গ্রামে বাস করতেন। হরিশপুরে জন্মগ্রহনকারী লালন ফকিরসহ অন্যান্য সাধকের রচিত ভাবগান পাঞ্জুশাহকে গভীরভাবে আকৃষ্ট করে। জীবনের শেষ দিকে পাঞ্জু শাহ খেরকা গ্রহণ করে ফকিরি জীবনযাপন শুরু করলেও, তিনি সংসারত্যাগী ফকির ছিলেন না। পাঞ্জু শাহ ৬৩ বছর বয়সে বাংলা ১৩২১ সনে ২৮শে শ্রাবণ মৃত্যুবরণ করেন।

মরমী কবি পাঞ্জু শাহ'র  (১৮৫১-১৯১৪) মাজার হরিশপুর গ্রামে অবস্থিত। মাজারটি একতলা ভবন বিশিষ্ট। ভবনটি উত্তর-দক্ষিণ লম্বা। ভিতরে তিনটি কবর। কবির দু'পাশে দু'স্ত্রী চন্দন নেছা ও পাঁচি নেছার কবর। এ মাজার দর্শনের জন্য দেশ-বিদেশের বহু লোক এখানে আসেন। বছরে ৩ বার মরমী কবির স্মৃতি রক্ষার্থে তাঁর অনুসারীগণ সাহিত্য সম্মেলন করে থাকেন।মরিম কবি পান্জু মশাহা


Share with :

Facebook Twitter